পাঁচ বছরের মধ্যে তৃতীয় দফায় ভোট যুক্তরাজ্যে,ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের অপেক্ষা

যুক্তরাজ্যে র্নিবাচন

1
114

যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ আজ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ৭ টায় শুরু হয়েছে। এ নির্বাচনকে বির্তকিত ব্রেক্সিট প্রশ্নে জণগনের মতামত পুর্যাচাই হিসেবে দেখা হচ্ছে।

সংসদে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় এবং দলীয় আইনপ্রণেতাদের বিরোধিতার কারণে গত ৩ বছরেও ব্রেক্সিট কার্রযকর করতে পারেনি ক্ষমতাসীন কনসারভেটিভরা। তাই একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় ফিরতে প্রধানমনএী বরিস জনসন এই নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন। ক্ষমতায় ফিরলে ৩১ জানুয়ারী ব্রেক্সিট কার্যকর করবেন তিনি।

অন্যদিকে লেবার নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, এ নির্বাচন ১০ বছর ধরে কনসারভেটিভ সরকারের কৃচ্ছ্রসাধন নীতির অবসানের মাধ্যেমে ন্যায়ভিওিক সমাজ গঠনের জন্য প্রজন্মের একমাএ সুযোগ। ক্ষমতায় গেলে করবিন ব্রেক্সিট প্রশ্নে পুনরায় গণভোটের আয়োজন করবেন। তাই যুক্তরাজ্যের প্রধানমনএী পদে কে আসন পাচ্ছেন, তার ওপর নির্ভ র করছে দেশের ভবিষ্যত গতিপথ। কনসারভেটিভ পার্টর নেতা বরিস জনসন এবং লেবার নেতা জেরেমি করবিন দুইজনই এই নির্বাচনকে জণগণের সামনে কঠিন সিদ্ধান্ত হিসেবে অভিহিত করেছেন। যুক্তরাজ্যে ৫ বছর পরপর সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু গত ৫ বছরের ও কম সময়ে এটি দেশটিতে ৩য় সাধারণ নির্বাচনের ঘটনা।

ভোটকেন্দ্রে ব্রিটিশ প্রধানমনএী বরিস জনসন

এছাড়া ১৯৭৪ সালের পর এবারই প্রথম শীতের মৌসুমে নির্বাচন হচ্ছে। আর প্রায় ১০০বছর পর এটি ডিসেম্বরে নির্বাচন আয়োজনের দ্বিতীয় ঘটনা। এর আগে ১৯২৩ সালে দেশটিতে ডিসেম্বরে নির্বাচন হয়েছিল।

এবারের নির্বাচনের আরেকটি বিরল ঘটনা হলো প্রধানম্ত্রী বরিস জনসন নিজেকে ভোট দেননী। তিনি বৃহওর লন্ডনের আক্সব্রিজ অ্যান্ড সাউথ রুইসলিপ আসনের প্রার্থী। মাএ ৫ হাজার ৩৪ ভোটের ব্যবধানে আসন ধরে রাখা জনগণকে পরাজিত করতে এবং লেবারদলীয় প্রার্থী আলী মিলানিকে বিজয়ী করতে ব্রেক্সিটবিরোধিরা ওই আসনে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছে।

১ মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে