তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের র্বাতায় কাপঁল যুক্তরাষ্ট্র! শ্রদ্ধা জানাতে ইরাকে লাখো মানুষের ঢল সোলাইমানি ও মুহান্দিসের প্রতি ,বাংলাদেশ-ভারত সর্ম্পকের উন্নতিতে অন্যতম কান্ডারি সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী

0
117

এসে গেছে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ এমন এক বার্তায় শুক্রবার থেকে কাপছে যুক্তািষ্ট্র। ইরানের শীর্ষ সামরিক কামান্ডার কাসেম সোলাইমান কে হত্যার পর যুক্তরাষ্ট্রের টুইটার ট্রেন্ডে শীষের্ ছিল #World War. বিষয়টি নিয়ে উওেজনা ছঢ়িয়ে পড়ার দেশটিতে বেশকিছু ওয়েব সাইট বন্ধ হয়ে যায়। সি এন এন জানায়, ভুল এক বার্তা ছড়িয়ে পড়ায় মানুষ হুমড়ি খেয়ে পড়ে এ সকল ওয়েব সাইটে। সেই সঙ্গে সঠিক তথ্য পাওয়ার জন্য একই সঙ্গে অনেকে সরকারি বেশ ওয়েব সাইটে প্রবেশ করায় তা ক্রাশ করে।ফলে আরো বিভ্রান্ত হয়ে পরে মানুষ। অবশ্য শেষ র্পযন্ত এক টুইট বার্তায় বিষয়টি নিয়ে এত উওেজিত না হওয়ার জন্য জানায় যুক্তরাষ্টের সিলেক্টিভ সাভির্স।সেখানে বলা হয়, ভুল তথ্য ছড়িয়ে পরার কারণে বেশ কিছু ওয়েব সাইট বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তা পুনরায় সচল করা হয়েছে। শুক্রবার মাকির্ন টেলিভিশন চ্যানেল জাতিসংঘে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত মাজিদ তাখতে রাভানচি বলেন, আমেরিকা যে হামলা চালিয়েছে তা প্রকৃতপক্ষে ইরানের জনগণের বিরুদ্ধে হামলা। এই হামলা একটি নতুন অধ্যায় যা ইরানের বিরুদ্ধে একটি যুদ্ধের সূচনা করল।

সামরিক হামলার জবাব সামরিক হামলা দিয়েই হয়। আর সেটা কখন, কিভাবে এবং কোথায় হবে ভবিষ্যতই তা বলে দেবে। ইরানি শীর্ষ জেনারেল কাসেম সোলা্িমানি ও ইরাকি কমান্ডার আবু মাহদি আল মুহান্দিসের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে ইরাকের বিভিন্ন শহরে লাখ লাখ মানুষ সমবেত হয়েছেন। আল জাজিরা আরবির খবরে বলা হয়, শনিবার ইরাকের কূটনৈতিক এলাকা গ্রীণ জোনে একটি জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার পর কাজেমাইন শহরে লাখ লাখ মানুষ তাদের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। তারপর তাদের মৃতদেহ পবিএ নাজাফ ও কারবালায় নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানেও লাখ লাখ মানুষ তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে অপেক্ষা করেছেন বলেখবর পাওয়া গেছে । বাগদাদে অবস্থিত ইরানের দূতাবাস জানিয়েছেেইরাকি জনগণের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতেজেনারেল সোলাইমানি সহ ইরানি শহীদদের মৃতদেহও কারবালা এবং নাজাফে নিয়ে যাওয়া হয়।সেথানে ইরাকি জনগণ তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং র্ধমীয় রীতি অনুযায়ী শোক পালন করেন। তিন দিন শোক পালন শেষে নিজ শহর কেরমানে নিহত বিপ্লবী গার্ড বাহিনির কামান্ডার ও আল কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে মঙ্গলবার দাফন করা হবে। আজ শনিবার রাতেই তারঁ মরদেহ তেহরানে নিয়ে আসার কথা রয়েছে। এর পর ইমাম রেজার মাজারে র্ধমীয় আনুষ্ঠানিকতার জন্য শিয়াদের পবিএ শহর মাশদাদে নিয়ে যাওয়া হবে।ইরানের সবোর্চ্চো নেতাআয়াতুল্লাহ আলী খামেনি নিজে জানাযা পড়াবে বলে জানিয়েছেন।

সদ্যপ্রয়াত সাবেক হাই কমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্কের উন্নতিতে অন্যতম কান্ডারির ভূমিকা গ্রহন করেছিলেন।দুই দেশের মধ্যে আস্থা ও বিশ্বাসের ভিত দৃঢ় প্রোথিত করতে তার ভূমিকা ছিল অনন্য। শুক্রুবার ভারতের নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের মৈএী হলে অনুষ্ঠিত এক স্মারণসভায় ভারতীয় সমাজের বিভিন্ন পেশার মনেুষ এ অভিমত ব্যাক্ত করেন। দীর্ঘ পাচঁ বছর ভারতে হাইকমিশনের দায়িত্বে পালনরত মোয়াজ্জেম আলী ১৯ ডিসেম্বর দেশে ফেরেন। ২৪ তারিখে দীর্ঘ ৫ বছর ভারতে হাই কমিশনের দায়িত্ব পালন করে মোয়াজ্জেম আলী ১৯ ডিসেম্বর দেশে ফেরেন। ২৪ তারিখে অসুস্থ বোধ করায় তাকেঁ হাসপাতালের্ র্ভতির্ করা হয়।৩০ ডিসেম্বর নিওমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে তিনি মারা যান। শুক্রবার বিকেলের এই স্মারণ সভা এক অথের্ স্মৃতি চারণা হয়ে দাড়ায়। প্রয়াত মোয়াজ্জেম আলীর ছবিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছে উপস্থিত সবাই। তার র্সম্পকের সংক্ষিপ্ত ভাষণে শ্রদ্ধা জানান ডেপুটি হাই কমিশনার রকিবুল হক। সাবেক ভারতীয় কূটতিক ,মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়া ভারতীয় সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্য,শিব্ষাবিদ ,ব্যবসায়ী ,কলাকুশলী ,গবেষক, সাংবাদিক ছাড়াও বহু সাধারণ মানুষ এই স্মারক সভায় উপস্থিত ছিলেন।প্রয়াত হাইকমিশনারের জীবন বহু দিক তাদের স্মৃতিচারণায় উঠে আসে। শুধু কূটনৈতিক ই নয়, শীল্প সাহিত্য, সংগীত নিয়েও তার আগ্রহ ছিল বিপুল। দ্বিপাক্ষীয় স্মর্প্কের সার্বিক উন্নতিতে কিভাবে তিনি এসব দিকে নজর দিয়েছেন ,স্মৃতিচারণে সেসব কথাও উঠে আসে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে